ফরমালিন মুক্ত খাবার চেনার উপায়

দিন দিন ফরমালিনের ব্যাবহার ভয়াবহ হারে বেড়ে চলছে। ফরমালিনের ব্যবহার অচিরেই রোধ না করলে আমাদের দেশের মানুষের সুস্থতা হুমকির মুখে পড়বে। বিশেষ করে শিশুদের মানসিকবিকাশে মারাত্মক হুমকির সৃষ্টি করবে । মাছে ভাতে বাঙালির আজ যেন মাছ খাওয়াই বারণ ।বাজারের ৮৫% মাছেই বিষাক্ত ফরমালিন মেশানো হচ্ছে । সেটা রাজধানীর কাওরান বাজার বাংলাদেশের যে কোন অঞ্চলের বাজার। সবখানেই মাছ ফরমালিন যুক্ত । সাধারণত মাছ যাতে তাড়াতাড়ি না পচে যায় তার জন্য আগে বরফ ব্যবহার করা হত । সময়ের পরিক্রমায় আজ তা ঠেকেছে ফরমালিনে । কিন্তু ফরমালিনে যে পরিমান বিষ তাতে আমাদের অবস্থা যে কোথায় যে ঠেকবে তার অনুমান করছেনা কেউ । উন্নয়নশীল বিশ্বের নানাবিধ সমস্যার মধ্যে একটি ভয়ঙ্কর সমস্যা হল অপুষ্টিজনিত সমস্যা ।

এমনিতেই পর্যাপ্ত পরিমানে খাবারের অভাব তারপর যেগুলো খাওয়া হচ্ছে তাতেও ভেজাল । বলা যায় শনির দশা । খাবারে ভেজাল আজ কোন গোপনীয় বিষয় নয়। বর্তমানে সব ধরনের খাবার যেমন ফল, মাছ , এমন কি দুধেও ফরমালিন, সহ মরণ ব্যাধি নানা ধরনের বিষাক্ত পদার্থ মেশানো হচ্ছে । কিন্তু আমরা অনেকে জানিই না ফরমালিন, কার্বাইড কি ? কি এর অপকারিতা ? কি ধরনের রোগ হতে পারে এসব বিষাক্ত রাসায়নিক পদার্থ গুলুর প্রভাবে ? সবচাইতে আলোচিত এবং বিষাক্ত ফরমালিন এক ধরনের রাসায়নিক পদার্থ। যা ফল বা মাছে মিশিয়ে পচন রোধ করা হয় ।একসময়ে এটি জিবানু নাশক হিসেবে ব্যবহার করা হত । তাছাড়া প্রাণীর মরদেহ সংরণের কাজেও এটি ব্যাবহার করা হয় । ব্যাকটেরিয়া নাশক হওয়ায় কসমেটিক তৈরিতেও এটি ব্যবহার করা হয় ।

 

 

আপনাকে কমেন্টস করতে হলে অবশ্যই লগইন করতে হবে লগইন

বিষয় ভিত্তিক পোষ্টগুলো

কারিগরি সহায়তায়:

বিজ্ঞাপন

প্রবেশ - কপিরাইটঃ ২০০৭ থেকে ২০১৪ | কিশোরগঞ্জ ডট কম