দূর্গত এলাকা ঘোষনার দাবিতে ইটনায় কৃষক সমাবেশ


সামাজিক সংগঠন “জাগরিত ইটনা” এর উদ্যোগে ইটনা সহ কিশোরগঞ্জের হাওরে সম্প্রতি বয়ে  যাওয়া অকাল বন্যায় ফসলি জমি, কৃষি ও কৃষকের স্বার্থে ও সাত দফা দাবি আদায়ের লক্ষ্যে আজ শনিবার বিকেল চার ঘটিকায় পশু হাসপাতাল রোড, ইটনায় কৃষক সমাবেশ ও মানববন্ধন শেষে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।   হাওরের কৃষি ও কৃষকের স্বার্থে “জাগরিত ইটনা” সাত দফা দাবি পেশ করে, দাবি গুলো হলো –

১. সমগ্র হাওরাঞ্চল তথা ইটনাকে সরকারি ভাবে দুর্গত অঞ্চল হিসেবে ঘোষণা করতে হবে।
২. কৃষিঋণ মওকুম করতে হবে এবং কৃষককে নতুন করে সুদমুক্ত কৃষিঋণ দিতে হবে।
৩. নদী খনন করতে হবে এবং পানি উন্নয়ন বোর্ডে (পাউবো) এর কর্মকতাদের জবাবদিহি নিশ্চিত করতে হবে।
৪. কৃষিজমি রক্ষায় হাওরে স্থায়ীভাবে বাঁধ নির্মাণ করতে হবে।
৫. কৃষি ও কৃষকের জন্য বরাদ্দ সুনিশ্চিত করতে হবে।
৬. বর্ষাকালে হাওর এলাকাবাসীর বিকল্প কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করতে হবে।
৭. জলমহাল ইজারা প্রথা বাতিল করে বর্ষাকালে সাধারণ কৃষক ও জেলের অবাধে মাছ ধরার অধিকার নিশ্চিত করতে হবে।

মানববন্ধন কর্মসূচিতে জাগরিত ইটনার পক্ষে শুভেচ্ছা বক্তবো রাখেন নাজমুল ঠাকুর।  ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকদের মধ্য গোলাম রহমান, নয়ন, এবং এলাকার গণ্যজনের মধ্যে আবুল খায়ের, জহিরুল আলম জাহাঙ্গীর, ও  ফয়সাল ঠাকুর।  সমাবেশ শেষে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বরাতে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের কাছে জাগরিত ইটনার মুখপাত্র কামরুল হাসান খান জুয়েল স্মারকলিপি পেশ করেন।  সমাবেশটি সঞ্চলনা করেন করেন শফিকুল ইসলাম।


আপনাকে কমেন্টস করতে হলে অবশ্যই লগইন করতে হবে লগইন

বিষয় ভিত্তিক পোষ্টগুলো

কারিগরি সহায়তায়:

বিজ্ঞাপন

প্রবেশ - কপিরাইটঃ ২০০৭ থেকে ২০১৪ | কিশোরগঞ্জ ডট কম