আজিমউদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়

দানবীর মুন্সী আজিমউদ্দিন ১৯১৬ সালে জানুয়ারী মাসের ২৮ তারিখ প্রতিষ্ঠা করেন আজিমউদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয় ।তার বাড়ির চত্বরেই তুলে দিলেন বিরাট এক দু’চালা ঘর ।প্রস্তাব হলো (বিশ) হাজার টাকা দিতে হবে ।সানন্দে রাজি হয়ে গেলেন দানবীর মুন্সি আজিমউদ্দিন আহমদ ।সেদিন অর্থ বড় কথা ছিল না ।

বড় কথা ছিল শিক্ষা বিস্তার।সে বছর শিক্ষার্থী ভর্তি করা হল ৩য় শ্রেনী হতে ৮ম শ্রেনী পর্যন্ত ।১৯১৭ খোলা হল ৯ম শ্রেনী এবং পরের বছর খোলা হল ১০ম শ্রেনী ।বিদ্যালয় সরিয়ে আনা হল বর্তমান স্হানে ।তখন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ছিলেন বাবু বসন্ত কুমার চক্রবর্তী ।বাবু হিরণ চন্দ্র গোস্বামী কিছুদিন বিদ্যালয় পরিচালনার কাজ করেছেলেন বসন্ত বাবুর আগমনের পূর্বে কিন্তু তিনি প্রধান শিক্ষক ছিলেন না ।

সে সময় কলকাতা বিশ্ব বিদ্যালয়ের বিস্তৃত ছিল বাংলা,বিহার,উড়িষ্যা ও আসাম ব্যাপি ।১৯২২ সাল রেবতী মোহন বর্মণ বিখ্যাত কমিউনিষ্ট নেতা তিনি তখন এন্ট্রান্স পরীক্ষা দিলেন আজিমউদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ।রেবতী মোহন বর্মণ রেকর্ড সৃষ্টি করলেন ।কলকাতা বিশ্ব বিদ্যালয়ে তিনি হলেন প্রথম স্হানের অধিকারী ।তার সাথে সাথে বাংলা,বিহার,উড়িষ্যা ও আসামের সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ল বিদ্যালয়ের সুখ্যাতি ।

পরবর্তী কালে এলেন আরও বহু মনীষী যারা শিক্ষা গ্রহন করেছিলেন আজিমউদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ডঃমোঃওসমান গণি,ডঃমোঃআব্দুল কাদের এ মিছিলে আর বহু মনীষী ছিলেন।বাবু বসন্ত কুমার চক্রবর্তীর পরে এলেন মহেন্দ্র চন্দ্র চক্রবর্তী এম.এ ।১৯৪৭ র বিপর্যের আঘাতে তিনি চলে গেলেন ।পরে ১৯৫১ সালে আসেন প্রধান শিক্ষক জনাব মোঃমতিয়ুর রহমান ।তার পর এখানে প্রধান শিক্ষক হিসেবে আসেন জনাব মোঃহেলাল উদ্দিন ভূইয়া ।



আপনাকে কমেন্টস করতে হলে অবশ্যই লগইন করতে হবে লগইন

বিষয় ভিত্তিক পোষ্টগুলো

কারিগরি সহায়তায়:

বিজ্ঞাপন

প্রবেশ - কপিরাইটঃ ২০০৭ থেকে ২০১৪ | কিশোরগঞ্জ ডট কম