আর্কাইভ হতে, বিভাগঃ ‘নদী পরিচিতি’

বারুনী

বারুনী

নেত্রকোনা জেলার সীমানা পেরিয়ে বারুনী নদী ইটনা ও তাড়াইল থানার সীমানা বরাবর কিশোরগঞ্জে প্রবেশ করেছে এবং নরসুন্দায় পতিত হয়েছে। কিশোরগঞ্জ অংশে এর দৈর্ঘ্য প্রায় ৬ মাইল (প্রায় ৯.৬ কিঃমিঃ)। শুষ্ক মৌসুমে পানি থাকেনা বললেই চলে ।বৃষ্টির দেবতা বরুণ থেকে বারুনী নামের উৎপত্তি হয়েছে বলে জনশ্রুতি রয়েছে ।

মগরা নদী

মগরা নদী

মগরা নদীর প্রায় ৪০০ বর্গমাইল (৬৪৩ বর্গ কিঃমিঃ) অববাহিকা রয়েছে। এই দীর্ঘ পথের সাথে খরিয়া নদীর মাধ্যমে পুরাতন ব্রহ্মপুত্রের সংযোগ রয়েছে,তবে নেত্রকোনা জেলায় “বূড়বুড়িয়া বিল” এ নদীর অন্যতম উৎস ।এখান থেকে রাংশা নদী ও গজারিয়া নদীর মিলিত স্রোত ধলাই নদী নামে উওর দিকে ঢাকুয়া খালে পতিত হয়েছে ।ধলাই নদী ও ঢাকুয়া খালের মিলিত স্রোত মগরা […]

ধনু/ঘোড়াউতরা/বাউলাই

ধনু/ঘোড়াউতরা/বাউলাই

ধনু মেঘনার উপনদী। অপর নাম বাউলাই । ভারতের মেঘালয় রাজ্যের যাদু কাটা ও ধোমালিয়া পাহাড়িয়া নদী ধনুর উৎস। সুনামগঞ্জের ভিতর দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ। সুনামগঞ্জ থেকে সোজা দক্ষিণে প্রবাহিত হয়ে নেত্রকোনা জেলার খালিয়াজুরী হয়ে কিশোরগঞ্জের ইটনা থানায় প্রবেশ করেছে। একভাগ সনপুর বেতাগা বসদিয়া হয়ে এবং অপর ভাগ বাদলা নাসিরুজিয়াল সাহিলা হয়ে সিংপুরের নিকট মিলিত হয়ে আরো […]

ব্রহ্মপুত্র নদী

ব্রহ্মপুত্র নদী

ব্রহ্মপুত্র নদী বা ব্রহ্মপুত্র নদ এশিয়া মহাদেশের একটি গুরুত্বপূর্ণ নদী। সংস্কৃত ভাষায় ব্রহ্মপুত্রের অর্থ হচ্ছে “ব্রহ্মার পুত্র। ব্রহ্মপুত্রের উৎপত্তি হিমালয় পর্বতমালার কৈলাস শৃঙ্গের নিকট জিমা ইয়ংজং হিমবাহে, যা তিব্বতের পশ্চিমাঞ্চলে অবস্থিত। সাং পো নামে তিব্বতে পুর্বদিকে প্রবাহিত হয়ে এটি অরুণাচল প্রদেশে ভারতে প্রবেশ করে যখন এর নাম হয়ে যায় সিয়ং। তারপর আসামের উপর দিয়ে দিহং […]

নরসুন্দা

নরসুন্দা

নরসুন্দা নদী হোসেনপুর-পাকুন্দিয়া দু’টি উপজেলার সীমানার নিকট ব্রহ্মপুত্রের সাথে যুক্ত। অন্যদিকে বাদলার নিকট ধনু নদীর সাথে সংযুক্ত। স্থানীয়ভাবে এই সংযোগস্থল ‘চৌগংগা’ নামে পরিচিত। চৌগংগা মানে ধনু, নরসুন্দা, ঘরভাংগা ও গোপী/বর্নি’র মিলনস্থল। এই নদী তাড়াইলের প্রান্ত ছুঁয়ে করিমগঞ্জ থানার মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে এবং কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার বিন্নাটি ইউনিয়নের পাটাবুকা গ্রামের পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া মরা […]

ধনু নদীর ইতিকথা – মোঃ রওশন আলী রশো

ধনু নদীর ইতিকথা – মোঃ রওশন আলী রশো

“আমরার আবু কান্দেরে ,ধনু গাঙ্গের পারে         আবু কইয়া ডাক দিলে, উইড়া আইয়া পড়ে” ধনু পারের কোন মা, তার শিশু সন্তানের মন ভুলানোর জন্য আদিকালে সুললিত সুরে এ কথাগুলো প্রথম উচ্চারণ করেছিল তা’ জানা সম্ভব নয়; হবে লোকায়ত এই পংথি দু’টোর মাধ্যমে ভাটি অঞ্চলের জনমনে এই নদীর প্রভাব সহজেই অনুধাবন করা যায়। সুনামগঞ্জ, নেত্রকোনা এবং কিশোরগঞ্জ […]

বিষয় ভিত্তিক পোষ্টগুলো

কারিগরি সহায়তায়:

বিজ্ঞাপন

প্রবেশ - কপিরাইটঃ ২০০৭ থেকে ২০১৪ | কিশোরগঞ্জ ডট কম