জাপানের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা (জাক্সা) গবেষকরা আশা করছেন যে, তাদের পাঠানো নভোযান হায়াবুসার বায়ু নিরোধক পাত্র থেকেই পাওয়া যাবে মহাকাশের অজানা রহস্যের সমাধান। কারণ, এর মধ্যেই আছে আলু আকৃতির ‘ইতোকাওয়া’ গ্রহাণুর ধূলিকণা। খবর ইয়াহু অনলাইনের।
https://i0.wp.com/tech.bdnews24.com/images/imgAll/hayabusha0607b.jpg?w=1080
সংবাদমাধ্যমটির বরাতে জানা গেছে, মঙ্গল এবং বৃহস্পতি গ্রহের মধ্যবর্তী অঞ্চলে অসংখ্য গ্রহাণুপুঞ্জের মধ্যে থেকে ইতোকাওয়া গ্রহাণুতে অবতরণ করতে পেরেছিলো হায়াবুসা। পৃথিবী থেকে ৩০ কোটি কিলোমিটার দূরের এই গ্রহাণুর উপাদান সংগ্রহ করতেই ২০০৩ সালে হায়াবুসাকে মহাকাশে পাঠিয়েছিলো জাপান মহাকাশ সংস্থা।
জানা গেছে, গত ২৪ জুন হায়াবুসাকে পৃথিবীতে ফিরিয়ে আনা হয়েছে। ফেরার পর হায়াবুসার সঙ্গে থাকা একটি পাত্র উদ্ধার করেছেন বিজ্ঞানীরা। গ্রহাণুর নমুনা সংগ্রহের জন্য ওই পাত্রটি হায়াবুসার সঙ্গে যুক্ত ছিলো।
সংবাদমাধ্যমটির বরাতে জানা গেছে, ২০০৫ সালের ২০ নভেম্বর নভোযানটি ৩০ মিনিটের মতো ‘ইতোকাওয়া’র ওপর অবস্থান করে বড় মাপের কিছু উপাদান সংগ্রহের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়। ২৫ নভেম্বর পুনরায় এটি গ্রহাণুর ওপর অবতরণ করে কিছু পদার্থ সংগ্রহের চেষ্টা শেষে পৃথিবীতে ফেরার যাত্রা শুরু করে।
জাক্সা-এর বরাতে জানা আরো গেছে, হায়াবুসা থেকে উদ্ধার করা ক্যাপসুলটি খোলার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। এতে নিশ্চিতভাবেই ধূলিকণা আছে। এখন দেখার বিষয়, এই ধূলিকণা মহাবিশ্বের অজানা অনেক রহস্যে কোনো কিনারা করতে সক্ষম কিনা।
তবে জাক্সার গবেষকদের বরাতে সংবাদমাধ্যমটি জানিয়েছে, চূড়ান্ত ফল পেতে আরও একমাস সময় লাগবে।