ইরানের ওপর জ্বালানি ও অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপ সংক্রান্ত নতুন একটি প্যাকেজ অনুমোদন শেষে বৃহস্পতিবার প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার কাছে পাঠিয়েছে মার্কিন কংগ্রেস।
মার্কিন সিনেট ও হাউস অব রিপ্রেজেনটেটিভ অনুমোদিত এ আইনটিকে ইরানের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে কঠোর নিষেধাজ্ঞা হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে।
সন্দেহজনক পারমাণবিক অস্ত্র কর্মসূচি থেকে তেহরানকে বিরত রাখাই এ নিষেধাজ্ঞার উদ্দেশ্য।
নতুন এ নিষেধাজ্ঞার উদ্দেশ্য হলো গ্যাসোলাইন ও জেট ফুয়েলের মতো পেট্রোলিয়াম পণ্য আমদানি করা এবং আন্তর্জাতিক ব্যাংকিং পদ্ধতি ব্যবহার থেকে ইরানকে বিরত রাখা।
ইরান পারমাণবিক অস্ত্র তৈরির চেষ্টা চালাচ্ছে বলে ওয়াশিংটনসহ পশ্চিমাবিশ্বের অভিযোগ।
এ আইনের ফলে ইরানকে পেট্রোলিয়াম পণ্য সরবরাহকারী মার্কিন বাজার কঠোর হয়ে পড়বে। এর আরেকটি লক্ষ্য হলো ইরানের জ্বালানি খাতে বিনিয়োগ বন্ধ করা।
https://i0.wp.com/world.bdnews24.com/wimage/wtop.jpg?w=1080
এ বিলটি ইরানের জ্বালানি খাতে বিদেশি কোম্পানিগুলোর বিনিয়োগে বাধা দিতে মার্কিন স্টেট ও স্থানীয় সরকারকে ক্ষমতাশালী করবে এবং ইরানের পণ্যের উপর বিদ্যমান মার্কিন বাণিজ্য নিষেধাজ্ঞাকে আরো কঠোর করবে।
মার্কিন সাংসদরা জানিয়েছেন, তেহরানকে পারমাণবিক কর্মসূচি থেকে বিরত রাখতে ওবামার কূটনৈতিক উদ্যোগ প্রত্যাখ্যান করেছে ইরান।
তবে তারা এটাও সতর্ক করে দিয়েছেন যে এ বিলের প্রভাব নির্ভর করছে ওবামার মনোভাবের ওপর।
আইনটিতে অবশ্য মানবাধিকার লঙ্ঘণকারী ইরানের কর্মকর্তাদের সনাক্ত করে তাদের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপ এবং তাদের সম্পত্তি জব্দ করারও আহ্বানও জানানো হয়েছে।